1. tohidulstar@gmail.com : sobuj ali : sobuj ali
  2. ronju@chapaidarpon.com : Md Ronju : Md Ronju
শহীদ মিনারের জায়গায় মার্কেট নির্মাণের প্রতিবাদে রাজশাহীতে মুক্তিযোদ্ধাদের মানববন্ধন - দৈনিক চাঁপাই দর্পণ
রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ০৬:৪৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৫৪৮ ঈদগাহে ঈদের জামাত ॥ জাতীয় সম্পদ চামড়া সংরক্ষনের আহবান চাঁপাইনবাবগঞ্জে ঈদ উপলক্ষে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছে জেলা প্রশাসন ও লেডিস ক্লাব পবিত্র ঈদুল আযহা’কে সামনে রেখে জয়পুরহাটের কামার পল্লী টুংটাং শব্দে সরগরম আমের ক্যারেটে মাদক পাচারকালে মাদকসহ ব্যবসায়ী আটক রেলওয়ের শুদ্ধাচার পুরস্কার পেলেন ভোলাহাটের কমল রাজশাহী মহানগরীতে ২৪ জন জুয়াড়ি গ্রেফতার বঙ্গবন্ধু মানুষের মৌলিক চাহিদা সংরক্ষণ করে গেছেন-প্রতিমন্ত্রী পলক ফুলবাড়ীতে গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যা ॥ স্বামী ও শাশুড়ী আটক আমের রাজধানী চাঁপাইনবাবগঞ্জের রহনপুরে জমজমাট আমবাজার-দাম চড়া ঈদযাত্রায় পদ্মা সেতুর সাত বুথে টোল আদায়-তারপরও গাড়ির চাপ

শহীদ মিনারের জায়গায় মার্কেট নির্মাণের প্রতিবাদে রাজশাহীতে মুক্তিযোদ্ধাদের মানববন্ধন

প্রেস বিজ্ঞপ্তি
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ২৪ মে, ২০২৩
  • ১০৫ বার পঠিত

শহীদ মিনারের জায়গায় মার্কেট নির্মাণের প্রতিবাদে রাজশাহীতে মুক্তিযোদ্ধাদের মানববন্ধন

রাজশাহীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের জায়গায় রাজশাহী জেলা পরিষদ কর্তৃক মার্কেট নির্মাণের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধন করেছেন বীর মুক্তিযোদ্ধারা। বুধবার সকালে সাহেব বাজার জিরো পয়েন্টে রাজশাহী জেলা কমাণ্ড, মহানগর কমাণ্ড, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ এর এই উদ্যোগে এই কর্মসূচি পালিত হয়।
বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, রাজশাহীতে ভাষা আন্দোলন থেকে মুক্তিযুদ্ধ-এদেশের প্রতিটি আন্দোলন-সংগ্রামের ইতিহাস ও স্মৃতিতে সমৃদ্ধ শিক্ষানগরী রাজশাহী। অথচ ঐতিহ্য বহনকারী এমন একটি শহরে শহীদদের স্মরণে কোন কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার নাই। ২০২০ সালে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের দাবিতে সাধারণ শিক্ষার্থী থেকে শুরু করে বীর মুক্তিযোদ্ধা, রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠন সহ সকল শ্রেণীপেশার মানুষ ব্যাপক আন্দোলন গড়ে তোলেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে সোনাদিঘি সংলগ্ন পুরাতন সার্ভে ইনস্টিটিউটের পরিত্যক্ত জায়গায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ২০২০ সালের ১৬ ডিসেম্বর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রধান কৌঁসুলি ভাষাসৈনিক বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট গোলাম আরিফ টিপু। ভিত্তিপ্রস্তুর স্থাপন অনুষ্ঠানে ছিলেন তৎকালীন রাসিক মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন, রাজশাহী-২ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা সহ রাজশাহীর সর্বস্তরের জনসাধারণ। সেই আন্দোলন ও ভিত্তিপ্রস্তর অনুষ্ঠানে বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর ইকবাল নিজেও ছিলেন। অথচ রাজশাহী জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হয়ে মীর ইকবাল লোভের কারণে সব ভুলে গেছেন। আমরা হুঁশিয়ারী দিয়ে বলতে চাই কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারের জায়গায় মার্কেট নির্মাণ করতে দেয়া হবে না। সেখানে মার্কেট নির্মাণের অপচেষ্টা করলে কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে। মানববন্ধনে রাজশাহী জেলার সাবেক ডেপুটি কমান্ডার ইয়াসিন আলী বলেন, কেন্দ্রীয় শহিদ মিনার যেখানে হওয়ার কথা সেখানেই হবে। কেউ বাধা গ্রস্থ করতে পারবে না।
কেন্দ্রীয় মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডের সাবেক সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা এ্যাড. মতিউর রহমান বলেন, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান লোভের কারণে শহিদ মিনারের জায়গায় মার্কেট নির্মাণ করতে চাচ্ছেন। তিনি কার স্বার্থে দলীয় স্বার্থের উর্ধ্বে উঠে মার্কেট নির্মাণ করতে চাচ্ছেন, সেটি আমরা জানতে চাই।
রাজশাহী মহানগর আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী কামাল জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের উদ্দেশ্য বলেন, আপনার ক্ষমতা নেই শহিদ মিনারের স্থানে মার্কেট নির্মাণ করার। আমরা সেখানে শহিদ মিনার করেই দেখাবো।
রাজশাহী মহানগর ইউনিট কমান্ড এর কার্যকরী সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপিকা জিনাতুন নেসা তালুকদার বলেন, যেখানে কেন্দ্রীয় ভাবে শহিদ মিনার নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে, সেখানে জেনে বুঝে কিভাবে মার্কেট বানানোর সিদ্ধান্ত নিলেন আমাদের বুঝে আসে না। ১৯৪৮ থেকে ৫২ ভাষা শহীদ, ১৯৭১ সালের ৩০ লক্ষ শহীদের আত্ম বড় কষ্ট পাচ্ছে আপনার বর্তমান কর্মকান্ডের জন্য।
সেক্টরস কমার্ন্ডাস ফোরাম এর বিভাগীয় সমন্বয়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসেন খন্দকার বলেন, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কর্তৃক মার্কেট নির্মাণ এই সরকার ও মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য লজ্জাজনক। মীর ইকবাল মুক্তিযোদ্ধা হয়ে কিভাবে শহিদ মিনারের জায়গায় মার্কেট নির্মাণের কথা চিন্তা করলেন অথচ আগের চেয়ারম্যানের সময় তিনিও আন্দোলন করেছিলেন। তার আশেপাশের লোকেরা মীর ইকবালকে বিপথগামী করেছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।
মানববন্ধনের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমাণ্ডের সাবেক মহানগর কমাণ্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. আব্দুল মান্নান বলেন, রাজশাহী কেন্দ্রীয় শহিদ মিনার এর জায়গায় মার্কেট অথবা শপিং মল অথবা অন্য যেকোন স্থাপনা নির্মারের চিন্তা করেছেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান। আমাদের ভাষা আন্দোলনে ঢাকার রাজপথ রক্তে রঞ্জিত হয়েছে, বাংলা ভাষাকে প্রতিষ্ঠিত করেছে। তাদেও শ্রদ্ধায় শহিদ মিনার নির্মিত হয়েছে অনেক স্থানে। কিন্তু দু:খের বিষয় এতোদিনেও রাজশাহীতে কেন্দ্রীয় ভাবে শহিদ মিনার নির্মিত হয়নি। এটা আমাদের ব্যর্থতা। আমাদের সাবেক মেয়র খায়রুজ্জামান লিন, এমপি ফজলে হোসেন বাদশার নেতৃত্বে এই স্থানটি নির্ধারন করা হয়েছে। সাবেক মেয়র লিটন ভাই ১৬ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছিলেন। অথচ সেখানে এই জেলা পরিষদ চেয়ারম্যার মার্কেট করতে চাচ্ছেন এটি কোনদিন হতে দেয়া হবে না। সেক্টরস কমান্ডার্স ফোরাম রাজশাহী মহানগরের সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান উজ্জল এর সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বীর মুক্তিযোদ্ধা এ্যাড. সাইদুল ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের কামরুল ইসলাম মিঠু, সেক্টরস কমান্ডার্স ফোরাম মুক্তিযোদ্ধা একাত্তর রাজশাহী জেলার সাধারণ সম্পাদক শাবান আলী দিলীপ সহ রাজশাহীর মুক্তিযোদ্ধাগণ উপস্থিত ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
Copyright All rights reserved © 2024 Chapaidarpon.com
Theme Customized BY Sobuj Ali
error: Content is protected !!