1. tohidulstar@gmail.com : sobuj ali : sobuj ali
  2. ronju@chapaidarpon.com : Md Ronju : Md Ronju
চাঁপাইনবাবগঞ্জে ধর্মীয় ভাবগাম্ভির্যের মধ্য দিয়ে পবিত্র লাইলাতুল ক্বদর পালন - দৈনিক চাঁপাই দর্পণ
মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১০:৩৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
‘ঘূর্ণিঝড় রেমাল’ লণ্ডভণ্ড উপকূল ॥ প্লাবিত গ্রামের পর গ্রাম ॥ ক্ষতি আমেরও ॥ ঢাকার উপর আঘাত জয়পুরহাটে মিটার চুরি করতে গিয়ে বিদুৎস্পৃষ্টে একজনের মৃত্যু ভোলাহাটে আলালপুর মাদ্রাসায় নিয়মবহির্ভূত নিয়োগ বন্ধের দাবি এলাকাবাসীর র‌্যাবের হাতে চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৩টি ওয়ান শুটারগানসহ গ্রেফতার এক ঘূর্ণিঝড় রিমাল’র তাণ্ডবে কয়েকটি জেলায় ৭ জনের মৃত্যু স্থলভাগে এসে দুর্বল হলো ‘রেমাল’ ॥ গভীর নিম্নচাপে পরিণত গাইবান্ধায় বিপুল পরিমান নেশার ট্যাবলেট ট্যাপেনটাডলসহ ব্যবসায়ী গ্রেফতার ভোলায় রেমালের তাণ্ডবে ঘরের নিচে চাপা পড়ে নারীর মৃত্যু ‘ঘূর্ণিঝড় রেমাল’ এর কবলে পড়ে সাতক্ষীরায় বেড়িবাঁধ ক্ষতিগ্রস্ত স্থলভাগে এসে দুর্বল হলো ‘রেমাল’ ॥ গভীর নিম্নচাপে পরিণত

চাঁপাইনবাবগঞ্জে ধর্মীয় ভাবগাম্ভির্যের মধ্য দিয়ে পবিত্র লাইলাতুল ক্বদর পালন

নিজস্ব প্রতিনিধি
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ৭ এপ্রিল, ২০২৪
  • ১৬৭ বার পঠিত

চাঁপাইনবাবগঞ্জে ধর্মীয় ভাবগাম্ভির্যের মধ্য দিয়ে পবিত্র লাইলাতুল ক্বদর পালন

পবিত্র লাইলাতুল ক্বদর। আরবি শব্দ ‘লাইলাতুল’ অর্থ রাত এবং ‘কদর’ শব্দের অর্থ মর্যাদা। অর্থাৎ লাইলাতুল কদর অর্থ মহিমান্বিত রাত। ইসলাম ধর্ম অনুসারে, লাইলাতুল কদর সৌভাগ্য বয়ে আনে। এ রাতে মানবজাতির ভাগ্য পুননির্ধারিত হয়। এ কারণে লাইলাতুল কদরের রাত অত্যন্ত পুণ্যময়। এ রাতের ইবাদত হাজার মাসের ইবাদতের চেয়েও বেশি পূণ্যের। যথাযোগ্য মর্যাদা ও ইবাদত বন্দেগীর মধ্য দিয়ে পবিত্র লাইলাতুল ক্বদর পালিত হয়েছে চাঁপাইনবাবগঞ্জে। জেলার ২ হাজার ৫০০ জামে মসজিদ ও প্রায় ৪ হাজার ওয়াক্তিয়া মসজিদে পবিত্র লাইলাতুল ক্বদর উপলক্ষে জেলার মসজিদগুলোতে ভিড় করেন মুসল্লিরা। ইবাদত-বন্দেগির মাধ্যমে মহিমান্বিত রাতটি পার করেছেন তারা। রমজানে শেষ দিকে পবিত্র লাইলাতুল ক্বদরের এ মহিমান্বিত রাতে মসজিদ বা বাসায় ইবাদত করেন ধর্মপ্রাণ মুসল্লীরা।

শনিবার সন্ধ্যার পরই মসজিদে আসতে থাকেন ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা। এশার আজানের পর পাড়া-মহল্লার মসজিদগুলোও কানায় কানায় ভরে যায়। এশার নামাজের পর তারাবিহ নামাজের পর এই মহিমান্বিত রাতের মর্যাদা ও করণীয় তুলে ধরে ইমাম-খতিবরা মসজিদগুলোতে আলোচনা করেন। মসজিদে, কেউ নফল নামাজ পড়েন, কেউ জিকিরে মশগুল। কেউ বা কুরআন তিলাওয়াত করেন। সকলেই নিজের কৃতকর্মের জন্য অনুতপ্ত ঈমানদার মুসলমান জীবনের গুনাহ থেকে আল্লাহর কাছে ক্ষমা প্রার্থণা করেন। পবিত্র লাইলাতুল ক্বদর উপলক্ষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিষ্ঠা করা ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ওয়াজ, দোয়া মাহফিল, আয়োজন করা হয়। চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মোঃ আশরাফুজ্জামান এর নির্দেশনায় জেলা মডেল মসজিদে প্রধান আলোচক ছিলেন জেলা মডেল মসজিদ ও ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের পেশ ইমাম মাওলানা মোঃ মুখতার আলী। বিশেষ আলোচক ছিলেন সদর উপজেলা মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের পেশ ইমাম হাফেজ মাওলানা মোঃ মাহবুবুর রহমান। শেষে নিজের এবং মুসলিম উম্মাহ গুনাহ মাফ চেয়ে ও দেশের মঙ্গল কামনা করে দোয়া করা হয়।

এসময় জেলা কার্যালয়ের ফিল্ড সুপারভাইজার মোঃ শরিফুল ইসলামসহ অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন। ইসলামিক ফাউন্ডেশন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা কার্যালয়ের উদ্যোগে জেলা সদর ও ৪ উপজেলার মডেল মসজিদে আলোচনা, দোয়া মাহফিল হয়। এ রাতে নিজ নিজ মৃত আত্মীয়দের রুহের মাগফেরাত কবরস্থানগুলোতেও যান অনেকে। এ রহমত ও বরকতময় রাতের উছিলায় মৃত প্রিয়জনের গুনাহ মাফের জন্য আল্লাহর কাছে ফরিয়াদ জানান মুসল্লীরা। এছাড়াও বাড়িতে বাড়িতে মা-বোনরা পবিত্র লাইলাতুল ক্বদর এই মহিমান্বিত রাতে ইবাদত বন্দেগী করেন এবং গুনাহ মাফের জন্য মহান আল্লাহ’র দরবারে ফরিয়াদ জানান।

এদিকে, পবিত্র লাইলাতুল ক্বদরে মহিমান্বিত এ রজনী উপলক্ষে দেশবাসীসহ সমগ্র মুসলিম উম্মাহকে আন্তরিক মোবারকবাদ জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মোঃ সাহাবুদ্দিন। শনিবার (৬ এপ্রিল) পবিত্র শবে কদর উপলক্ষে দেয়া এক বাণীতে তিনি এ মোবারকবাদ জানান। রাষ্ট্রপতি বলেন, পবিত্র লাইলাতুল কদর মানবজাতির জন্য অত্যন্ত বরকত ও পুণ্যময় রজনি। অসীম দয়ালু মহান আল্লাহ এ রাতকে হাজার মাসের চেয়েও উত্তম হিসেবে ঘোষণা করেছেন। মানুষের ক্ষণস্থায়ী জীবনে হাজার মাসের চেয়েও বেশি ইবাদতের পুণ্য লাভের সুযোগ এনে দেয় এ রাত। মহিমান্বিত এই রজনিতে মহান আল্লাহ তায়ালার দরবারে দেশবাসীসহ সমগ্র মুসলিম উম্মার জন্য মাগফেরাত ও কল্যাণ কামনা করে মো. সাহাবুদ্দিন বলেন, মহান আল্লাহর নৈকট্য লাভের অপার সুযোগ নিয়ে বরকতময় পবিত্র শবেকদর আমাদের মাঝে সমাগত। তিনি বলেন, পবিত্র ধর্মীয় গ্রন্থ আল-কুরআন লাইলাতুল কদরে নাযিল হয়। এ বিষয়ে আল্লাহ তায়ালা বলেন, নিশ্চয়ই আমি তা (কুরআন) অবতীর্ণ করেছি ক্বদরের রাতে। তাই মুসলিম উম্মার নিকট শবে কদরের গুরুত্ব, তাৎপর্য ও ফজিলত অত্যধিক। এই মহিমান্বিত রজনি সকলের জন্য ক্ষমা, বরকত, সমৃদ্ধি ও কল্যাণ বয়ে আনুক-মহান আল্লাহর দরবারে এ প্রার্থনা করি।

রাষ্ট্রপতি বলেন, ইসলাম শান্তি ও কল্যাণের ধর্ম। মানুষের ইহকালীন কল্যাণ ও পরকালীন মুক্তির জন্য ইসলামের সুমহান আদর্শ আমাদের পাথেয়। বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে করোনা মহামারি, সংঘাত, যুদ্ধবিগ্রহ, অভাব-অনটনসহ নানা কারণে হাজার হাজার মানুষ অসহায় অবস্থায় দিনাতিপাত করছে। তিনি বলেন, আসুন শবেকদরের এই পবিত্র রজনিতে আমরা এ সকল সংকট থেকে উত্তরণের জন্য সর্বশক্তিমান আল্লাহর দরবারে প্রার্থনা করি। আমি পরম করুণাময় আল্লাহর নিকট অশেষ রহমত ও বরকত কামনার পাশাপাশি দেশের অব্যাহত অগ্রগতি ও কল্যাণের জন্য প্রার্থনা জানাই।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
Copyright All rights reserved © 2024 Chapaidarpon.com
Theme Customized BY Sobuj Ali
error: Content is protected !!